টেক নিউজ

ইন্টারনেট ছাড়াই দ্রুত ডিটুএম বা ডাইরেক্ট টু মোবাইল সার্ভিস চালু হচ্ছে

ডিটুএইচ বা ডাইরেক্ট টু হোম এর পরে এবার ডিটুএম বা ডাইরেক্ট টু মোবাইল সার্ভিস চালু হচ্ছে

ডিটুএইচ এর কথা নিশ্চয় শুনেছেন! কিন্তু ডিটুএম এর কথা হয়ত প্রথম শুনলেন! হ্যা, ‘ডিরেক্ট টু হোম’ বা ডিটিএইচ লাইনের মতো ‘ডিরেক্ট টু মোবাইল’ প্রযুক্তির মাধ্যমে গ্রাহকরা নিজেদের ফোনে লাইভ টিভি দেখতে পাবেন এবার। আর এর সবচেয়ে বড় সুবিধা হল, এর জন্য কোনও নেট কানেকশন বা ডেটা খরচ করা লাগবে না। দেখা যাবে বিভিন্ন টিভি চ্যানেল, জনপ্রিয় সব শো।সাম্প্রতিক ভারতের তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয় সূত্রে এমন আকর্ষনীয় তথ্য জানানো হয়েছে।

তবে ভারত সরকার এই মুহূর্তে ডিটুএম পরিষেবা নিয়ে পরীক্ষা নিরীক্ষা ও চালাচ্ছে। যাতে এই পরিষেবার মাধ্যমে ভারতীয় স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের কাছে বিনামূল্যে ও ইন্টারনেট পরিষেবা ছাড়াই লাইভ টিভি পরিষেবা পৌঁছে দেওয়া যায়। আর এমনটা হলেই তা হবে সেদেশের জন্য যুগান্তকারী এক পদক্ষেপ।

যদিও এই সার্ভিসের ব্যাপারে দারুন অসন্তোষ প্রকাশ করেছে দেশটির মোবাইল অপারেটর সংস্থাগুলো। তবে ভারতের গ্রাহকরা বলছেন, এই পরিষেবার মাধ্যমে মোবাইল নেটওয়ার্ক কিছুটা হলেও কনজংশন ফ্রি হবে বা চাপ কমবে। যার ফলে বাড়বে মোবাইলের ইন্টারনেট গতি। সঙ্গে বাড়বে মোবাইল ডাটা খরচ। যার মাধ্যমে বেশ লাভবান হবে মোবাইল অপারেটর সংস্থাগুলোও।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, টেকনোলজির মাধ্যমে ভারত যে ডিটুএম পরিষেবা নিয়ে আসছে তা মূলত রেডিও ফ্রিকোয়েন্সির মত। ভারত থেকে আইআইটি কানপুর ও প্রসার ভারতী যৌথ এক বিবৃতিতে জানিয়েছে যে, এই পরিষেবা অনেকটাই এফএম রেডিও সার্ভিস এর মতো। এখন আমরা বিনামূল্যে ও ডেটা কানেকশন ছাড়া যেভাবে এফএম রেডিও সার্ভিস পেয়ে থাকি, ঠিক সেভাবেই পাওয়া যাবে ডিটুএম বা ডাইরেক্ট টু মোবাইল পরিষেবা।

এই ডিটুএম সার্ভিসের জন্য শুধু আমাদের মোবাইলে প্রয়োজনীয় চ্যানেলটির ফ্রিকোয়েন্সি খাপ খাওয়ানোর প্রয়োজন পড়বে। এই কার্যক্রমটির জন্য আপাতত ভারতে ৫২৬ থেকে ৫৮২ মেগাহার্জ বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

এবিষয়ে আরও বলা হয়েছে, এই ডাইরেক্ট টু মোবাইল সার্ভিসটি আর্থিকভাবে সমৃদ্ধশালী ও সুদূরপ্রসারী করতে ভারত সরকারের পক্ষ থেকে ‘পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশিপ’ এর আওতায় আনায়ন করার জন্য চেষ্টা চালানো হচ্ছে।

ডিটুএম
ডিটুএম সার্ভিস

তবে ডিটুএইচ এর মত এই ডিটুএম বা ডাইরেক্ট টু মোবাইল সার্ভিসে বিনামূল্যে সার্ভিস পাওয়া গেলেও এই পরিসেবার দর্শকরা বিরক্ত হতে পারেন অতিরিক্ত বিজ্ঞাপন দ্বারা। তবে এবিষয়ে আরো জানা গেছে, এটি প্রাথমিকভাবে শুধুমাত্র ভারত সরকার নিয়ন্ত্রিত ডিডি বা দূরদর্শন ও দূরদর্শনের আঞ্চলিক টেলিভিশনগুলো এই ব্যবস্থার মাধ্যমে দেখা যাবে। যেমন কোলকাতা থেকে পরিচালিত ডিডি বাংলা টেলিভিশন চ্যানেল।

শিক্ষা, চাকরি ও দেশ-বিদেশের সব ধরণের নিউজ পেতে আমাদের ‘শিক্ষা নিউজ’ অনলাইন পোর্টালটি নিয়মিত ভিজিট করুন। আমরা শিক্ষার্থী, শিক্ষক, চাকরি প্রত্যাশী ও চাকরিজীবীদের জন্য সব ধরণের খবর প্রকাশ করি। এছাড়া দেশ-বিদেশের চলমান সব খবর পেতে shikkhanews.com এর সাথে থাকুন।

শিক্ষা নিউজ, আর, আর।

One Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button