জানা-অজানা

নারীর ষোলকলা আসলে কী : ষোলকলা দোষ না গুণ?

ষোলকলা অর্থ কী : ষোলকলা কী কী?

শিক্ষা নিউজ : ওর ছলাকলায় ভুলে আমার জীবন টা শেষ! অনেক সময় বড়রাও উপদেশ দিয়ে থাকেন, মেয়েদের ছলাকলায় ভুলিস না। এই “ছলাকলা” আসলে মেয়েদের বা নারীর ষোলকলা। এই ১৬ কলা বলতে নারীর গুণবাচক আর্টকে বুঝানো হলেও, আমাদের সমাজে এটিকে নেতিবাচক অর্থে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। তাহলে চলুন আমরা জেনে আসি, ষোলকলা অর্থ কী? ষোল কলা পূর্ণ হল কেন বলা হয়। ৬৪ কলা নয় ষোল কলা কি কি?

বৈদিক ধর্ম অনুযায়ী মেয়েদের জীবনে ১৬ টি বিশেষ ধাপ আছে সেগুলিকে একত্রে মেয়েদের ষোলকলা বলা হয়।

১৬ বা ষোলকলা হল:

১ম কলাঃ “নিবৃতি” হল ষোলকলার ১ম কলা। যার মূল কথা হল, সংসারের মধ্যে থেকেই সাংসারিক বন্ধন থেকে মুক্ত হওয়া।

২য় কলাঃ “প্রতিষ্ঠা” হল ষোলকলার ২য় আর্ট বা কলা। সংস্কৃতিতে এটাকে বলা হয় “সৎ মার্গ তে” অর্থাৎ সৎ বা খারাপ কাজ থেকে বিরত থেকে যশ বা খ্যাতি অর্জন করা।

৩য় কলাঃ “বিদ্যা” হল ১৬ কলার ৩য় কলা। নিস্বার্থ ভাবে জনহিতকর কাজের প্রসার ঘটানোর জন্য সকল মানুষকে বিদ্যা দান করা হল এই কলার মূল কথা।

৪র্থ কলাঃ “স্থিতপ্রঙ্গ” হল ১৬ কলার ৪র্থ কলা। এই কলার মূলকথা বা ধাপ হল; শান্তি , মন ও মস্তিষ্কর মধ্যে সমন্বয় সাধন করে স্থির চিত্ত্যে থাকা। তথা- সব পরিস্থিতিতেই যেন মানসিক চিন্তা ও শান্তি বজায় থাকে এই চেষ্টা করা।

৫ম কলাঃ “ইন্দিকা” হল ষোল কলার ৫ম কলা। নিজের অন্ত:শক্তিকে সংগ্রহ করা। অর্থাৎ মনের শক্তি বা আত্মনিয়ন্ত্রণ আনা হল নারীদের জীবনের একটি ধাপ।

৬ষ্ঠ কলাঃ “দীপিকা” হল ষোল কলার ৬ষ্ঠ নং কলা। এই কলার উদ্দেশ্য হল, শক্তির সৎ ও উপযুক্ত প্রয়োগ নিশ্চিত করা।

৭ম কলাঃ “রেচিকা” হল ১৬ কলার ৭ম কলা। নিজের দুষ্ট প্রকৃতিকে চিনে, সেই দুষ্ট প্রকৃতিকে স্বীকার করা এবং তাকে পরিত্যাগের চেষ্টা করা হল এই আর্ট বা কলার মূল কথা।

৮ম কলাঃ “মোচিকা” হল ষোলকলা ৮ম নং কলা। নারী তার নিজেকে পৃথিবীর সকল মায়া ও মোহ থেকে মুক্ত রাখবে, এটিই হল এই কলার উদ্দেশ্য।

৯ম কলাঃ “পরা” হল ষোল কলার ৯ম নং কলা। নতুন দিশা বা উদ্দেশ্য সাধনের লক্ষে নিজেকে পরিচালিত করা এবং নিজের লক্ষ্য স্থাপন করা হল এই কলার উদ্দেশ্য।

১০ম কলাঃ অমৃত” হল নারীর ষোল কলার ১০ম কলা। অমৃত বা সত্য বা বাস্তববাদী কথার প্রয়োগ ও তাকে অমৃতর মত বিস্তার করার কলা হল অমৃত কলা। এটাকে আংশিক রুপান্তরিত করেই এই অমৃত কলাকেই সম্ভবত মেয়েদের ছলাকলা বলা হয়।

১১ শ কলাঃ সুক্ষ” কলা হল মেয়েদের ১৬ কলার একাদশ কলা। সৎ সুক্ষতার বিচার করা এই কলার লক্ষ। সুক্ষ বিচার বিশ্লেষণ করার শক্তি অর্জন করতে হয় এই কলায়।

১২ শ কলাঃ “জ্ঞান অমৃত” হল ১২ তম কলা। জ্ঞান অর্জন করে তাকে অমৃতের মত সবার মধ্যে বিতরণ করা হল এই কলার উদ্দেশ্য।

১৩ শ কলাঃ “অপার” বা আনন্দ বিস্তার করা কলা হল ষোল কলার ত্রয়োদশ কলা। জীবনে পরিপূর্ণতা লাভ করা এই কলার উদ্দেশ্য।

১৪ শ কলাঃ নিজের কর্ম দ্বারা সমাজের কল্যাণ করা।

১৫ শ কলাঃ ব্যাপিনী” হল ষোলকলার ১৫দশ তম কলা। সত্যকে সর্বব্যাপী করা এই কলার লক্ষ ও উদ্দেশ্য।

১৬ শ কলাঃ ব্যোম রুপা” নামক কলা হল ষোলকলার শেষ কলা বা ১৬ নং কলা। আকাশের মত নিজের বিরাট ব্যক্তিতে পরিণত করে সকলকে আকৃষ্ট করা বা সম্মোহিত করা বা ব্যক্তি বা নিজেকে সেলেব্রেটিতে পরিণত করা হল নারীদের ষোলকলার শেষ কলা।

ষোলকলা বলেন আর ছলাকলা বলেন, এটা নারীদের বিশেষ গুন সমুহ, যা মেয়েরা জীবনের বিভিন্ন ধাপে এই কৌশলগুলো আয়ত্ব করে। এটি নারীর জন্য ইতিবাচক। অথচ নারীদের যারা নিন্দা করে তাদের কাছে নেতিবাচক।

One Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button