প্রাথমিক

প্রাথমিক শিক্ষকদের দীর্ঘ প্রতীক্ষার অবসান

সহকারী শিক্ষকদের প্রধান শিক্ষক পদে পদোন্নতি শুরু

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ দেশের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের পদোন্নতির জটিলতা কেটে গেছে। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় আজ বাংলাদেশ সরকারী কর্ম কমিশনের সুপারিশের পরিপ্রেক্ষিতে লক্ষ্মীপুর জেলার লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলা, কমলনগর ও রায়পুর উপজেলা (৩টি উপজেলা) ২০১ জন সহকারী শিক্ষককে প্রধান শিক্ষক পদে (গ্রেড-১১, যাদের বেতনক্রম-১২৫০০-৩০২৩০ টাকা) পদোন্নতির অফিস আদেশ জারি করে ( স্বারক নম্বর: ৩৮. ০০.০০০০.০০৮.১২.০৮১.২৩.৩৩২ তারিখ: ০৩ আগস্ট ২০২৩)। এর মাধ্যমে প্রাথমিক সহকারী শিক্ষকদের দীর্ঘ প্রতীক্ষার অবসান হল।

পদোন্নতিপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকগণকে আগামী ০৮.০৮. ২০২৩ ইংরেজি তারিখ পূর্বাহ্নে জেলার প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার, লক্ষ্মীপুর এর নিকট যোগদান করতে হবে। উল্লিখিত তারিখে কেউ যোগদানে ব্যর্থ হলে তিনি পদোন্নতি যোগ্য নন বলে গণ্য হবেন এবং তার পদোন্নতির আদেশ বাতিল বলে হবে।

এরপর যোগদান পরবর্তী ২ (দুই) কার্য দিবসের মধ্যে যোগদানকৃত শিক্ষকদের পদায়ন করা হবে। এ ক্ষেত্রে চলতি দায়িত্ব/ভারপ্রাপ্ত হিসেবে নিয়োজিত পদোন্নতিপ্রাপ্ত শিক্ষকগণকে স্ব-স্ব কর্মরত বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পদেই পদায়ন করতে হবে।

জানাগেছে, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেনি এমপি’র নির্দেশনায় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালেয়ের সচিব ফরিদ আহাম্মদ, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচাল শাহ রেজওয়ান হায়াতের উদ্যোগে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কর্মরত সহকারী শিক্ষকদের পদোন্নতি সংক্রান্ত জটিলতার নিরসন হয়।

মামলা ছাড়াও সারা দেশের সহকারী শিক্ষকদের গ্রেডেশন বা জৈষ্ঠতার তালিকা চূড়ান্ত করা নিয়ে বড় ধরনের জটিলতা ছিল। এর কারণ হল, বিষয়টি ছিল জটিল ও সময়সাপেক্ষ। এ সমস্যা উত্তরণে ‘সমন্বিত গ্রেডেশন ব্যবস্থাপনা’ নামে একটি সফটওয়্যার তৈরি করা হয়। এরপরই ডিজিটাল পদ্ধতিতে চূড়ান্ত হয় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক থেকে প্রধান শিক্ষক হওয়ার জন্য গ্রেডেশন লিস্ট।

প্রাথমিক বিদ্যালয় সম্পর্কিত প্রাথমিক গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর, শিক্ষা ও চাকরি সম্পর্কিত সব নিউজ পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজটি ফলো করুন।

শিক্ষা নিউজ আর আর।

Related Articles

2 Comments

  1. The very next time I read a blog, I hope that it wont disappoint me as much as this one. I mean, Yes, it was my choice to read through, however I genuinely believed you would have something interesting to talk about. All I hear is a bunch of crying about something you could fix if you werent too busy searching for attention.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button