প্রাথমিক

প্রাথমিক শিক্ষকদের বেতন বিবরণী

প্রাথমিক শিক্ষকদের বেতন বিবরণী

সম্পর্কে আজ আমরা জানতে চলেছি। বিশেষকরে যারা সহকারী শিক্ষক হিসেবে যোগ দিতে যাচ্ছেন, বা যোগ দেওয়ার ইচ্ছা আছে তাঁদের আগে জানা দরকার এই চাকরির বেতন ও সুযোগ-সুবিধা কেমন?

প্রাথমিক সহকারী শিক্ষকদের বেতন কত

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে জানা গেছে যে, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক হিসেবে যাঁরা যোগ দেন, তাদের শুরুতেই বেতন হবে ১৩তম গ্রেডে ( তথা ১১,০০০-২৬,৫৯০ টাকা পর্যন্ত)। মূল বেতন বা ব্যাসিক ১১ হাজার টাকা। এর সঙ্গে বাড়িভাড়া, চিকিৎসা ভাতা, টিফিন ভাতা ও বিশেষ ক্ষেত্রে যাতায়াত ভাতা পেয়ে থাকেন।

প্রাথমিক শিক্ষকদের বেতন ভাতা

প্রাথমিক শিক্ষকরা মূল বেতনের বাইরে একজন নতুন সহকারী শিক্ষক চিকিৎসা ভাতা ১ হাজার ৫০০ টাকা, টিফিন ভাতা ২০০ টাকা পাবেন। এর সাথে বাড়িভাড়াও রয়েছে। তবে শহর ও গ্রাম্য এলাকাভেদে বাড়িভাড়ায় কিছুটা ভিন্নতা রয়েছে। যেমন : ঢাকা সিটি করপোরেশন এলাকার জন্য বাড়িভাড়া নির্ধারণ হবে মূল বেতনের ৬০ শতাংশ। চট্টগ্রাম, খুলনা, রাজশাহী, সিলেট, বরিশাল, রংপুর, নারায়ণগঞ্জ, গাজীপুর সিটি করপোরেশন এবং সাভার পৌর এলাকার জন্য মূল বেতনের ৫০ শতাংশ বাড়িভাড়া। অন্যান্য স্থানের জন্য বাড়িভাড়া নির্ধারিত হবে মূল বেতনের ৪৫ শতাংশ।

প্রাথমিক সহকারী শিক্ষকদের মোট বেতন কত

একজন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক শাহেদ আহমেদ শিক্ষা নিউজকে বলেন, একদম নতুন একজন সহকারী শিক্ষক সব ঢাকা সিটির মধ্যে যোগ দিলে বেতন পাবেন সর্বসাকুল্যে ১৯ হাজার ৫০০ টাকা। এছাড়া চট্টগ্রাম, খুলনা, রাজশাহী, সিলেট, বরিশাল, রংপুর, নারায়ণগঞ্জ বা গাজীপুর সিটি করপোরেশন অথবা সাভার পৌর এলাকায় নতুন যোগদান করলে বেতন হবে ১৮ হাজার ৫০০ টাকা। এসকল সিটি এলাকার বাইরে বা প্রত্যন্ত এলাকায় যোগ দিলে তার বেতন হবে প্রথমে ১৭ হাজার ৯৫০ টাকা।

প্রাথমিক শিক্ষকদের উৎসব ভাতা কি

প্রাথমিক শিক্ষকদের প্রতিবছর মূল বেতনের ৫ শতাংশ হারে বেতন বৃদ্ধি হবে অর্থাৎ ৫৫০ টাকা হারে বেতন বাড়বে। তারা বছরে মূল বেতনের সমপরিমাণ দুটি উৎসব ভাতা প্রাপ্ত হন। অর্থাৎ ১১ হাজার টাকা করে উৎসব ভাতা। এছাড়া মূল বেতনের ২০ শতাংশ বৈশাখী ভাতা পেতে থাকেন প্রতিবছর। এ ছাড়া সমগ্র চাকরিজীবনে তারা দুটি টাইম স্কেল পেয়ে থাকেন।

প্রাথমিক শিক্ষকদের পদোন্নতি

প্রাথমিক সহকারী শিক্ষকদের পদোন্নতির বিষয়ে শিক্ষা নিউজ ডটকমকে সাতক্ষীরার একজন সহকারী শিক্ষক আমিনুর রহমান বলেন, সহকারী শিক্ষক থেকে পদোন্নতি পেয়ে সহকারী প্রধান শিক্ষক ও প্রধান শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ পাওয়ার সুযোগ থাকলেও বাস্তবে এই অধিদপ্তরের আওতায় পদোন্নতি তেমন হয় না। কোন উপজেলায় পদ খালি থাকা সাপেক্ষে প্রধান শিক্ষক পদে পদোন্নতি পাওয়া যায়। এক্ষেত্রে অধিকাংশ শিক্ষক মোট চাকরি জীবনের ২০ থেকে ২২ বছর অতিক্রম করার পরে পদোন্নতি পেয়ে থাকেন। সর্বশেষ একটি পদোন্নতি কার্যক্রম চলমান রয়েছে। তবে সেখানে সারা দেশ থেকে প্রায় ১০ হাজার জনের বেশি সহকারী শিক্ষক শেষ বয়সে পদোন্নতি, সুবিধাজনক স্থান থেকে বদলি হয়ে যাওয়ার ভয়, বেতন কাংখিত হারে বৃদ্ধি না পাওয়া ইত্যাদি কারণে পদোন্নতি গ্রহণ করেন নি।

প্রাথমিক শিক্ষকদের সুযোগ সুবিধা

প্রাথমিকের প্রধান শিক্ষক বা সহকারী শিক্ষকদের সুযোগ সুবিধা সমুহের মধ্যে একটি হল অসুস্থ হলে চিকিৎসার জন্য কল্যাণ তহবিল থেকে আর্থিকপ্রাথমিক আর্থিক সাহায্য দেওয়া হয়। এছাড়া প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নিয়োগ পরীক্ষা হলে তাদের সন্তানের জন্য পোষ্য কোটার ব্যবস্থা রয়েছে। এছাড়া আরও সুযোগ হল, যোগ্যতা সাপেক্ষে এক বছর বিদেশে পড়াশোনা করার সুযোগ পায় এরা। যার খরচ বহন করে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর।

কত বছরে কত পেনশন

প্রাইমারি শিক্ষকদের চাকরির বয়স পাঁচ বছর পূর্ণ হলে সে পেনশন প্রাপ্তির আওতায় পড়বে। তারা চাকরি শেষে পেয়ে থাকেন ১৮ মাসের মূল বেতনের সমপরিমাণ ল্যামগ্রান্ড, ১২ মাসের পিআরএল, অর্জিত মূল বেতনের ২৩০ গুণ পেনশন ও আজীবন পারিবারিক পেনশন। এছাড়া ১ হাজার ৫০০ টাকা চিকিৎসা ভাতা এবং ব্যক্তি চাকরিজীবীর বয়স ৬৫ বছরের ঊর্ধ্বে হলে পেনশনারদের মাসিক চিকিৎসা ভাতা হবে ২ হাজার পাঁচ শত টাকা।

প্রাথমিক শিক্ষকদের বেতন বিবরণী

আরও পড়ুন : প্রাথমিক শিক্ষকদের বকেয়া টাইমস্কেলের পৃষ্ঠাঙ্কনের কাজ দ্রুতই

প্রিয় পাঠক, প্রাথমিক বিদ্যালয়, মাধ্যমিক বিদ্যালয়, উচ্চমাধ্যমিক বিদ্যালয় সহ শিক্ষা ও চাকরি বিষয়ক সকল কিছু জানতে shikkhanews.com লিখে সার্চ করে শিক্ষা ও চাকরি বিষয়ক সকল তথ্য জেনে আপডেট থাকুন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button