চাকরি

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার তারিখ জানালো প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর

শিক্ষা নিউজ ডেস্ক : প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক নিয়োগের প্রথম ধাপের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হতে পারে আগামী অক্টোবর মাসের শেষ সপ্তাহে। এজন্য প্রস্তুতি ও শুরু করে দিয়েছেন প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর-ডিপিই।

আরো পড়ুন :

প্রাথমিক শিক্ষকদের টাইমস্কেল জটিলতা নিরসন

তিন দিন ছুটি পাচ্ছে সরকারি চাকরিজীবীরা

বেসরকারি শিক্ষক নিয়োগ নিবন্ধন পরীক্ষা বাতিল

ফরিদ আহাম্মদ, সচিব প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় গত ২৫ সেপ্টেম্বর, রোববার গণ মাধ্যমের সাংবাদিকদেরকে জানান, নিয়োগ পরীক্ষায় যে ব্যয় হবে, সে অর্থের বিষয়ে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের অর্থ মন্ত্রণালয়ের মৌখিক সম্মতি পাওয়া গেছে। এখন এই অর্থ বিষয়ক অনুমোদনের চিঠি হাতে পাওয়ার এক মাসের মধ্যে প্রথম ধাপের শিক্ষক নিয়োগের লিখিত পরীক্ষা নেয়া সম্ভব হবে বলে জানান তিনি।

জানাগেছে, চলতি বছরের ২৮ ফেব্রুয়ারি প্রথম ধাপে রংপুর, বরিশাল ও সিলেট বিভাগের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। এরপর দ্বিতীয় ধাপে ২৩ মার্চ ময়মনসিংহ, খুলনা ও রাজশাহী বিভাগের জন্য এবং তৃতীয় ধাপে ঢাকা ও চট্টগ্রাম বিভাগের জন্য ১৮ জুন নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। এখন শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষাও ধাপে ধাপে নেয়া হবে।

এবার তিন ধাপে মোট সাড়ে ১১ লাখ প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চাকরিপ্রার্থী আবেদন করেছেন। যদিও নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতে শূন্য পদের সংখ্যা উল্লেখ করা হয়নি। তবে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর সূত্র জানা গেছে যে, এই প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক নিয়োগের জন্য দেশের আট বিভাগে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষকের অনুমোদিত শূন্য পদের সংখ্যা মোট ৭ হাজার ৪৬৩টি।

যফিও এর আগে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানানো হয়, চলতি বছরের সেপ্টেম্বর মাসের শেষ দিকে এই পরীক্ষা হতে পারে। কিন্তু এবিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের এক ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা বলেন, সাড়ে ১১ লাখ শিক্ষক নিয়োগ প্রার্থীর নিয়োগ পরীক্ষার খাতা মূল্যায়ন ও ফল ব্যবস্থাপনার সক্ষমতা প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের নেই। এ কারণেই বিভিন্ন নিয়োগ পরীক্ষার খাতা মূল্যায়ন ও ফল ব্যবস্থাপনায় গ্রহণযোগ্যতা থাকা বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়-বুয়েটকে এই কাজে যুক্ত করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। আর এ জন্য বুয়েটকে অর্থ দিতে হবে। আর এই ব্যয় পরিশোধের জন্য অর্থ মন্ত্রণালয়ে অর্থ প্রাপ্তির অনুমোদন চাওয়া হয়েছে। এবং বুয়েটকে যে অর্থ দিতে হবে, সেই অর্থের অনুমোদন না দেয়ায় নিয়োগ পরীক্ষার অনুষ্ঠিত করা এতদিন আটকে ছিল বলে জানান তিনি।

শিক্ষা নিউজ : আর আর।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button