খেলাধুলা

বিশ্বকাপ ক্রিকেট থেকে আইসিসির নতুন নিয়ম

স্পোর্টস ডেস্ক: জুলাই ১৪. ২০১৯ সাল। এই দিনে ক্রিকেট বিশ্ব এক রোমাঞ্চকর ফাইনালের সাক্ষী ছিল। নির্ধারিত ১০০ ওভার শেষে ইংল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ডের ম্যাচটি টাই হয়। ম্যাচ তখন তুঙ্গে। যেহেতু এটি একটি টাইতে শেষ হয়েছিল, সুপার ওভারের লড়াইটি সমাধান হয়নি।

চ্যাম্পিয়ন বাছাই করতে আইসিসিকে ভিন্ন পন্থা অবলম্বন করতে হবে। ম্যাচ ও সুপার ওভারে বেশি বাউন্ডারি মেরে ইংল্যান্ডকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়। ফাইনালে নিউজিল্যান্ডের বাউন্ডারি ছিল ১৭টি এবং ইংলিশের ২২ টি। মূলত ইংরেজদের বিজয়ী ঘোষণা করা হয়েছিল কারণ এই সীমানা নম্বরটি এগিয়ে ছিল।

টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটের সুপার ওভারের এই নিয়ম সেদিন ইংল্যান্ডের পক্ষে গেলেও ক্রিকেট বিশেষজ্ঞদের কাছে তা খুব একটা গ্রহণযোগ্যতা পায়নি। যে কারণে বিশ্বকাপের পরের আসর শুরুর আগেই নিয়ম বদলাতে বাধ্য হয় আইসিসি।

বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা ২ অক্টোবর এই সীমানা নিয়ম পরিবর্তন করেছে। এটি আর কোনো আইসিসি টুর্নামেন্টে প্রযোজ্য হবে না, প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে।

সেক্ষেত্রে গ্রুপ পর্বে সুপার ওভার টাই হলে ম্যাচটি টাই বলে বিবেচিত হবে। আর সেমিফাইনাল ও ফাইনালে একটাই পরিবর্তন। প্রতিপক্ষের চেয়ে বেশি রান করতে হবে। যতক্ষণ পর্যন্ত কেউ প্রতিপক্ষের চেয়ে বেশি রান না করবে ততক্ষণ সুপার ওভার চলবে।

লর্ডসে সেই ফাইনালে, আম্পায়ার ওভার নিক্ষেপের নিয়ম ভুল না করলে নিউজিল্যান্ড জিতত। এরপর সুপার ওভারেও কেন উইলিয়ামসনের কপাল পুড়ে যায় বাউন্ডারির ​​নিয়মে। এনিয়ে আইসিসিকে “আইসবার্গগুলি আরও ভালভাবে দেখার জন্য টাইটানিককে আরও ভাল বাইনোকুলার দিতে” বলেছিল।

যাইহোক, প্রাক্তন ইংলিশ অধিনায়ক ইউইন মরগান, যিনি সেই ইভেন্টে ট্রফি তুলেছিলেন, আইসিসির নিয়ম পরিবর্তনকে সাধুবাদ জানিয়েছেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button